রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ১২:৪২ অপরাহ্ন

বাড়তি ঝামেলা এড়াতে আগেই ঢাকা ছাড়ছেন অনেকে

  • সর্বশেষ আপডেট মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০১৯, ৬.৩৪ পিএম

ঢাকা: বাঙালির পারিবারিক বন্ধন এখনও অটুট। যেকোনো উৎসব এলেই তাই ছোটে আপন নিবাসে। বাড়ি ফেরে আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করে উৎসব উদযাপন করতে। ঈদ তেমনই একটি বড় ধর্মীয় উৎসব।

ঈদুল ফিতরের এখনো বাকি ৮-৯ দিন। ঝামেলা, ঝুঁকি এড়াতে অনেকেই তাই আগে বাড়ি পাঠিয়ে দিচ্ছেন পরিবারের সদস্যদের। যারা কর্মজীবী, তারাই শুধু থাকছেন ঢাকায়। তারা বাড়ি ফিরবেন ঈদের এক বা দু’দিন আগে।

বাড়ি ফেরা লোকজন বলছেন, ঈদের সময় স্ত্রী-সন্তান কিংবা মা-বাবাকে নিয়ে বাড়ি ফেরা অনেক কষ্টের। ভিড় ও ঝুঁকি এড়াতেই তারা আগে বাড়ি পাঠিয়ে দিচ্ছেন।

কমলাপুরে এখনো ঈদের আগাম ট্রেনের যাত্রা শুরু হয়নি। ৩১ মে ঈদসেবা শুরু করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

মঙ্গলবার (২৮ মে) রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, অনেকেই পরিবারের অন্য সদস্যদের ট্রেনে তুলে দিচ্ছেন। কেউ স্ত্রী সন্তানকে ট্রেনে তুলে দিচ্ছেন আবার কেউ ভাই-বোন কিংবা মা-বাবাকে।

খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের যাত্রী সুমাইয়া ফেরদৌস বলছিলেন, তিনি দুই সন্তানকে নিয়ে আজ ফিরছেন। তার স্বামীর অফিস থাকায় তিনি যাবেন ৩ জুন।

একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা রাদ বিন মাসউদ। মঙ্গলবার (২৮ মে) পঞ্চগড়গামী দ্রুতযান এক্সপ্রেসে স্ত্রী-সন্তানকে তুলে দিয়ে তিনি ঢাকায় থেকে গেছেন। তিনি বলেন, আজ পরিবারকে পাঠিয়ে দিয়েছি। ঈদে নারী ও শিশুদের নিয়ে যাওয়া অনেক ঝুঁকির। তাই নিরাপদে পৌঁছাতে আগেই পাঠিয়ে দিলাম।

একই সুরে সুর মিলিয়ে আরেক বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সাকিব হাসান বলেন, স্ত্রী ও মেয়েকে নিরাপদে বাড়ি ফেরাতেই আজ দিনাজপুর পাঠিয়ে দিলাম। আমি ৪ জুন গিয়ে ঈদ করবো। আত্মীয়-স্বজনের ঈদ করা অন্যরকম আনন্দের। তাই শত কষ্ট সত্ত্বেও প্রতিবছর ঈদে আপন নিবাসে যাই।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক জানান, এখনো ঈদের চাপ পড়েনি। অনেকে পরিবারের সদস্যদের আগে পাঠিয়ে দিচ্ছে। ৩১ মে থেকে ঘরমুখো মানুষের স্রোত বাড়বে।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themebaalokitokant1852550985
©2019 All rights reserved Alokitokantho
Devoloped by alokito kantho.com