শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন

ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে পাকিস্তান

  • সর্বশেষ আপডেট রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯, ৯.০১ এএম

ডেস্ক নিউজ: ভারত পাকিস্তান যখন ক্রিকেট খেলে তখন সেটা আর নিছক খেলা থাকে না এমনটা বলা হচ্ছে অন্তত দুই দশক ধরে। তারপর সময় গড়িয়েছে, দুদেশের সম্পর্ক হয়েছে আরও বৈরী। তাই এখন খেলাটা যেন হয়ে গেছে যুদ্ধের চেয়েও বেশি কিছু। দুদল দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলেছে না, সেও অনেক বছর হয়ে গেল। কিন্তু বিশ্বকাপে তো এই মুখোমুখি হওয়াটা এড়ানোর সুযোগ নেই। তাই আজ মাঠে নামছে ক্রিকেটের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দল ভারত-পাকিস্তান।

ফুটবলে যেমন ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচকে কেন্দ্র করে বিশ্বব্যাপী ক্রীড়ামোদীরা বিভক্ত হয় দুই ভাগে। ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ ঘিরেও সেভাবে বিভক্ত হয়ে পড়েন উপমহাদেশের দর্শকরা। একসময় বাংলাদেশের দর্শকদের ক্রিকেট বিনোদনের পুরোটাই ছিল ভারত-পাকিস্তানের খেলা ঘিরে। এখন নিজেদের দল হৃষ্টপুষ্ট হওয়ায় সেদিক থেকে মনোযোগ সরেছে খানিকটা। তবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আবেদন হারিয়ে যায়নি, এ যেন চিরায়ত! দুই দলের লড়াইয়ে এ অঞ্চলের মানুষের মনস্তাত্ত্বিক লড়াইও চলে আসে।

বহুল প্রতীক্ষিত এই লড়াইয়ের বেশ আগে থেকেই চলছে মাঠের বাইরের যুদ্ধ। কথার যুদ্ধও কম হচ্ছে না। ভিডিও চ্যাটে সেটা করে দেখালেন শেবাগ ও শোয়েব। একসময় ব্যাট হাতে শোয়েবের গতি সামলানো সাবেক ভারতীয় ওপেনার তার দলের জয় ছাড়া অন্য কিছু দেখছেন না। শেবাগের কাছে সাবেক পাকিস্তানি পেসারের প্রশ্ন ছিল, ‘টস ও অন্যান্য বিষয় বিবেচনা করে পরের ম্যাচ নিয়ে তুমি কী ভাবছো?’

সাবেক ব্যাটসম্যানের সহজ উত্তর, ‘আমার কোনো দিক থেকেই বিশ্বাস হয় না ১৬ তারিখ পাকিস্তান হারাতে পারবে ভারতকে।’

যদিও শেবাগকে ইয়র্কার দিতে ভুল হলো না শোয়েবের। গতিদানব নিজ দেশের পক্ষে ধরলেন বাজি, ‘আমার মনে হয়, যদি পাকিস্তান টস জেতে, তাহলে তারা জিতবে। তা ছাড়া এই টুর্নামেন্টের সবারই সুযোগ আছে।’

এই ম্যাচে গ্যালারিতে উপচেপড়া ভিড় হবে, সেটা বলা বাহুল্য। গতকাল শনিবার এক সাক্ষাৎকারে ক্রিকেট বিশ্বের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা এই দ্বৈরথ নিয়ে পাকিস্তান দলের প্রধান নির্বাচক ইনজামাম বলেছেন, ‘যখন ভারত আর পাকিস্তান বিশ্বকাপে একে-অপরের মুখোমুখি হয়, তখন সেটা হয়ে যায় ফাইনালের আগে একটি ফাইনাল। এই ম্যাচ নিয়ে সবসময় লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা কাজ করে। স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা ২৪ হাজার, কিন্তু এই ম্যাচের টিকিট কিনতে চেয়েছে ৮ লাখ দর্শক। এ থেকে বোঝা যায়, কত বড় ম্যাচ এটা।’

বিশ্বকাপে পাকিস্তান কখনো ভারতকে হারাতে পারেনি। কিন্তু এবার সেই ধারা দল ভাঙতে পারবে বলে মনে করেন ইনজামাম। নির্বাচক প্রধান বলেছেন, ‘ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে অতীত পারফরম্যান্স দিয়ে কিছু যায় আসে না। এটা নির্ভর করে ম্যাচের দিন কে ভালো পারফর্ম করছে তার ওপর। আমি আশা করি, পাকিস্তান বিজয়ী হবে এবং লোকজন মানসম্মত একটা খেলা উপভোগ করবে।’

পাকিস্তানকে শুভকামনা জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘এই টুর্নামেন্টে পাকিস্তান একটি ম্যাচ জিতেছে। আশা করি, দলের ভাগ্য পাল্টে যাবে। পাকিস্তান বিশ্বকাপে ভারতকে কখনো হারাতে পারেনি। নিঃসন্দেহে চাপ তাদের ওপর থাকবে। তবে ভালো পারফর্ম আপনাকে তৃপ্ত করতে পারে।’

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themebaalokitokant1852550985
©2019 All rights reserved Alokitokantho
Devoloped by alokito kantho.com