রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৫৯ অপরাহ্ন

বন্যায় প্রাণহীন ২৭, প্লাবিত ২৯টি জেলা

  • সর্বশেষ আপডেট বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০১৯, ৮.০৪ এএম

আলোকিত কন্ঠ ডেস্ক: বন্যায় প্লাবিত আসামের ২৯টি জেলা। এতে কমপক্ষে ২৭ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৫৫ লাখ মানুষ।

সুত্র বলছে, ভারতের মরিগাঁওয়ে মারা গেছেন চার জন। সোনিতপুরে ও উদালগুড়িতে দু’জন করে মারা গেছেন। কামরূপ ও নগাঁওয়ে একজন করে মারা গেছেন। এ তথ্য আসাম স্টেট ডিজঅ্যাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির (এএসডিএমএ)। তারা বুধবার নিহতের ওই পরিসংখ্যান দিয়েছে।

সুত্রে আরো বলা হয়েছে, কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কে মারা গেছে একটি গন্ডার। গুয়াহাটি ও রাজ্যের অন্যান্য স্থানে ব্রহ্মপুত্র ও তার শাখা নদীগুলোতে এখনও পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এএসডিএমএ বলেছে, বন্যার কারণে কমপক্ষে দেড় লাখ মানুষ বাড়িঘর ছাড়া হয়েছেন। তারা আশ্রয় নিয়েছেন ৪২৭টি আশ্রয়কেন্দ্রে। রাজ্য সরকার স্থাপন করেছে ৩৯২টি ত্রাণ বিতরণ কেন্দ্র। প্লাবিত হয়েছে কাজিরাঙ্গা, মানাস ন্যাশনাল পার্কস ও পবিতোরা বন্যপ্রাণী সংরক্ষণাগারের বিশাল এলাকা। এতে গন্ডার সহ বিভিন্ন রকম প্রাণী জীবন বাঁচাতে উঁচু ভূমির দিকে ছুটে গিয়েছে।

বুলেটিনে বলা হয়েছে, জোরহাট, তেজপুর, গুয়াহাটি, গোয়ালপাড়া, ধুবরিতে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র নদ। ধুব্রিগড়ের খোয়াংয়ে বুরহিডেহিং, লক্ষ্মীপুরে বাদাতিঘাটে সুবানসিরি, গোলাঘাটে নুমালিগড়ে ধানসিড়ি নদী, সোনিতপুরে জাই ভারালি নদী, কামপুরে কোপিলি নদী বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

 

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themebaalokitokant1852550985
©2019 All rights reserved Alokitokantho
Devoloped by alokito kantho.com