আজ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

শ্রমিক আন্দোলনকে পুঁজি করে নাশকতা করলেই কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারী র‌্যাবের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ শ্রমিক আন্দোলনকে পুঁজি করে কোন ধরনের নাশকতা-সহিংসতা করে পোশাক শিল্প যদি নষ্ট করার চেষ্টা করে তাদের বিরুদ্ধে র‌্যাব কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।
শনিবার (০৪ নভেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-৪ সিপিসি-২ এর আশুলিয়ার নবীনগর কার্যালয়ে পোশাক শ্রমিকদের চলমান আন্দোলন ঘিরে সহিংসতা রোধে পোশাক কারখানাগুলো পরিদর্শন, র‌্যাবের কার্যক্রম পর্যালচনা ও মতবিনিময়ে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেছেন, একইভাবে যারা এই গার্মেন্টস শিল্পকে নিয়ে অস্বস্তিকর পরিবেশের সৃষ্টি করছে তাদেরকে আমরা অনেককে আইডেন্টিফাই করতে পেরেছি। তাদের বেশ কয়েকজনকে ইতিমধ্যে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। ভবিষ্যতে যারা এই শিল্প নিয়ে পিছন থেকে হোক বা মাঠ থেকে হোক অরাজকতা করার চেষ্টা করবে আইনের আওতায় আনবো। ইতিমধ্যে যেখানে যেখানে গার্মেন্টস বেশি রয়েছে এই স্থানগুলোতে আমাদের র‌্যাবের টহল বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। পুলিশ এবং বিজিবির সাথে আমরা যৌথ পেট্রোল করছি৷ যেকোন ধরনের নাশকতা এবং সহিংসতা রোধে আমাদের এই পেট্রোল কার্যক্রম চলমান থাকবে৷
তিনি আরও বলেন, কিন্তু আমরা দেখতে পাচ্ছি একটি স্বার্থন্বেষী মহল আমাদের শান্তিপ্রিয় শ্রমিকদের ভুল তথ্য ও গুজবের মাধ্যমে বা নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করার জন্য উস্কানি মূলক তথ্য প্রদানের মাধ্যমে অরাজকতা, সহিংসতা বা নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। গত ৩১ অক্টোবর জোসনা নামে এক পোশাক শ্রমিককে মিরপুর থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না কেউ না কেউ গুম করেছে এমন একটি গুজব ছড়িয়ে পড়ে। যার ফলে এক নভেম্বর সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মিরপুরে অনেক সহিংসতা ও নাশকতা হয় এই গুজবের কারণে৷ ‌র‌্যাব-৪ এর একটি আভিধানিক দল ১ নভেম্বর জোসনাকে খুঁজে বের করে। যেই জোসনা কি না বাসায় তার পরিবার নিয়ে অবস্থান করছিলেন।
কঠিন আইনানুগ ব্যবস্থার হুশিয়ারী দিয়ে তিনি বলেন, যারা এই শান্তিপ্রিয় শ্রমিক ভাইদের নিয়ে নাশকতা সহিংসতার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠিন আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। গাজীপুর, সাভার-আশুলিয়া সহ বিভিন্ন এলাকায় দুষ্কৃতিকারীরা চোরা গুপ্ত হামলা থেকে সহিংসতা করছে। তাদের বিরুদ্ধেও আমাদের আইনানুগ ব্যবস্থা চলমান রয়েছে। র‌্যাব ফোর্সেস এই চলমান সহিংসতা প্রতিরোধে কিছু কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আমরা আমাদের গোয়েন্দা কার্যক্রম বৃদ্ধি করেছি। পূর্বের তুলনায় আমরা আমাদের সাইবার ওয়ার্ল্ডে নজরদারি বৃদ্ধি করেছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ যদি আমাদের এই শান্তিপ্রিয় গার্মেন্টস শ্রমিকদের নিয়ে উস্কানিমূলক কোন রকমের বক্তব্যে মাধ্যমে শ্রমিকদের উস্কে দেয়। আমরা তাদেরকে আইনের আওতায় আনবো।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন র‍্যাব ফোর্সেস এর অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স), অপারেশন্স উইং এর পরিচালক ও র‌্যাব-৪ সিপিসি-২ এর কোম্পানি কমান্ডারসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ