আজ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং

মধুখালীকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহ ও ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা করলেন

পার্থ রায়, মধুখালী উপজেলা প্রতিনিধি : ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে চতুর্থ পর্যায়ে অবশিষ্ট এবং ৫ম পর্যায়ে ১ম ধাপে ঘর জমি পেলেন ৮৭টি ভূমিহীন ও  গৃহহীন পরিবার। একই সাথে মধুখালী উপজেলাকে গৃহ ও ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা করেন  প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষ্যে ৯ নভেম্বর সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব জমি ও ঘরের দলিল হস্তান্তরের উদ্বোধন করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক উদ্বোধন পরবর্তী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামনুন আহমেদ অনীকের সভাপতিত্বে ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ লিটন আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক বকু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মাদ মুরাদুজ্জামান মুরাদ, মোরশেদা আক্তার মিনা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শামীম আরা, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শহিদুল ইসলাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল আউয়াল আকন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেব কুমার দাস, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কল্লোল সাহা, রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ জাকির হোসেন মিয়া এবং উপকারভোগীর মধ্যে বক্তব্য রাখেন আসিয়া বেগম।
এ দিন উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে ২৪টি, ডুমাইন ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পে ২০টি, মধুখালী পৗরসভার দাউলিযাপাড়া ৪১টি, কামালদিয়া ইউনিয়নের কালপোহা আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২টি সহ মোট ৮৭টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়।
আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর চতুর্থ পর্যায়ের (২য় ধাপে) ঘরগুলোকে আরও টেকসই ও জলবায়ু সহনশীল করা হয়েছে। ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য নির্মিত দু’শতাংশ জমির উপর উন্নতমানের দু’রুম বিশিষ্ট আধাপাকা টিনশেডের ঘরে রয়েছে একটি রান্নাঘর, একটি টয়লেট, কমন স্পেস ও বারান্দা। জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন ও মৌলিক শিক্ষা নিশ্চিত করা এই উদ্যোগের মূল লক্ষ্য।
উপজেলায় চতুর্থ পর্যায়ের ১ম ধাপে ৪২০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসিত করা হয়েছে।
আর দ্বিতীয় ধাপে বিতরণ করা হচ্ছে ২৩০ টি ঘর এবং চতুর্থ পর্যায়ে অবশিষ্ট এবং ৫ম পর্যায়ে ১ম ধাপে ঘর ৮৭টি মোট ৭শ ৩৭টি গৃহ ও ভূমিহীন পরিবার ঘর ও ২ শতাংশ জমি বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায়ে মধুখালী পৌরসভা-১৭৬, বাগাট ইউনিয়ন-২৬, কামারখালী ইউনিয়ন – ৬১, নওপাড়া ইউনিয়ন-৩৩, গাজনা – ইউনিয়ন – ১১২,রায়পুর ইউনিয়ন-১২৩,
 কামালদিয়া ইউনিয়ন-১০, কোড়কদি ইউনিয়ন – ৩৫, মেগচামী ইউনিয়ন-৩৫, ডুমাইন ইউনিয়ন – ৭৭, আড়পাড়া ইউনিয়ন-১৫, জাহাপুর ইউনিয়ন-৩৪টি। এই উপজেলায় আর গৃহ ও ভূমিহীন না থাকায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মধুখালী উপজেলাকে গৃহ ও ভূমিহীন মুক্ত ঘোষনা  করেন।
“বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহ ও ভূমিহীন থাকবে না”- এই শ্লোগানকে সামনে রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সারাদেশে ৫হাজার ৩৯৭ টি ঘর ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমি ও ঘর হস্তান্তরের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ