আজ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে মে, ২০২৪ ইং

কুড়িগ্রামের পঞ্চম শ্রেণির ৩ শিক্ষার্থী কক্সবাজারে, উদ্ধার করলো পুলিশ

এম জি রাব্বুল ইসলাম পাপ্পু ,কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি :  পঞ্চম শ্রেণির তিন শিক্ষার্থী পরিবারের কাউকে না জানিয়ে কক্সবাজার ভ্রমণে যায়।

গত ১৬ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে  ভূরুঙ্গামারী থানাধীন পাইকেরছড়া ইউনিয়নের বেলদহ গ্রামস্থ্য বেলদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীতে পড়ুয়া স্কুল ছাত্র ফরহাদ হোসেন এবং তার অপর দুই সহপাঠি মিম খাতুন এবং  তানিয়া খাতুন পরিবারের কাউকে কিছু না জানিয়ে নিখোঁজ হয়। এর প্রেক্ষিতে নিখোঁজ ছাত্র-ছাত্রীদের অবিভাবকরা অত্র ভূরুঙ্গামারী থানায় এসে তিনটি পৃথক পৃথক সাধারন ডাইরী করেন।
নিখোঁজ স্কুল পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের হারানোর বিষয়ে জিডির প্রেক্ষিতে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ অনুসন্ধান কার্যক্রম শুরু করে। তৎক্ষণাৎ ভিকটিমগণের পাড়া-প্রতিবেশী, আত্মীয়-স্বজন সহ বিভিন্ন জায়গায় অনুসন্ধান কার্যক্রম কালে তথ্য প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতায় ১৮/১১/২০২৩ তারিখে ভিকটিমগণ বর্তমানে কক্সবাজার সদর মডেল থানাধীন ডলফিন মোর এলাকায় অবস্থানের বিষয় জানতে পারলে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশের একটি চৌকস টিম কক্সবাজার সদর থানা এর অন্তরগত ডলফিন মোড় এলাকায় রওনা করেন। গত ১৯/১৮/২০২৩ তারিখে কক্সবাজার পৌঁছে কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের সহায়তায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ ভিকটিমগণকে সুস্থ শরীরে কক্সবাজার হতে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
পরবর্তীতে ভিকটিমদের জিজ্ঞেসাবাদে জানা যায়-তানিয়ার দীর্ঘদীনের শখ সে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে যাবে। কিন্তু তার বয়স কম হওয়ায় তার সহপাঠি মোঃ ফরহাদ হোসেন এবং মোছা: মিম খাতুন এর শরনাপন্ন হন। পরবর্তীতে তারা তিন সহপাঠি মিলে প্লান করে পরিবারের কাউকে কিছু না জানিয়ে পরিবারের প্রায় ২৮০০০/- টাকা গোপনে হস্তগত করে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে রওনা করে।
পরবর্তীতে ইং ২০/১১/২০২৩ ভিকটিমগণকে উদ্ধারপূর্বক থানায় পৌঁছে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার এর উপস্থিতিতে এবং নারী ও শিশু অফিসারের সহায়তায় ভিকটিমগণকে তাদের নিজ নিজ অভিভাবকের জিম্মায় জিম্মা নামা ও অঙ্গীকারনামা আমলে প্রদান করা হয়।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ