আজ ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

চতুর্থবারের মতো এমপি হলেন এডভোকেট, আ ক ম মোজাম্মেল হক

মোঃ মনির হোসেন, কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : গাজীপুর-১আসনে চতুর্থবারের মত এমপি হলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত হেভিওয়েট প্রার্থী জনাব, অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক।
সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা সুত্রে এতথ্য পাওয়া গেছে, ১৬হাজার৪৩০ভোট বেশী পেয়ে নৌকার প্রার্থী এ্যাড আকম মোজাম্মেল হক বিজয়ী হয়েছেন । স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাসেল। তাদের ব্যাপক গণসংযোগ, প্রচার-প্রচারণায় প্রবীণ বনাম নবীণের লড়াইয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা ও আলোচনা- সমালোচনা শেষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এক লক্ষ্য নয় হাজার দুইশত আঠারো টি (১০৯২১৮) ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রেজাউল করিম রাসেল পেয়েছেন ৯২ হাজার সাতশত ৮৮ টি ভোট। প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।স্থানীয় ভোটার ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর অদুরে অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ আসনটি হচ্ছে গাজীপুর-১।
গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলা, কালিয়াকৈর পৌরসভা এবং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ১ নাম্বার ওয়ার্ড থেকে ১৮ নাম্বার ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত আসনটি। টানা তিন বার গুরুত্বপূর্ণ এ আসনটি দখল করে রেখেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক  মন্ত্রী আ. ক. ম মোজাম্মেল হক। দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনেও চর্তুথ বারের মতো দলীয় মনোনয়ন পেয়েছিলেন ১৯শে মার্চের এ মহানায়ক। বর্তমানে তিনি গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি। তিনি গত ১৯৭৩-১৯৮৬ সাল পর্যন্ত ৩ বার জয়দেবপুর ইউপি চেয়ারম্যান, ১৯৮৯-২০০৮ সাল পর্যন্ত ৪ দফায় গাজীপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। গত ২০০৮ সালে পৌর মেয়র থেকে পদত্যাগ করে প্রথম নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন বর্ষিয়ান এ নেতা। তিনি দশম ও একাদশ জাতীয় নির্বাচনেও দলীয় মনোনয়ন পেয়ে এ আসন থেকে পূনঃনির্বাচিত হন। পর পর দুই বার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন স্বাধীনতা পুরষ্কার প্রাপ্ত এ নেতা। বঙ্গবন্ধু কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তার নিজ আসনে ব্যাপক উন্নয়নে ভুমিকা রাখেন তিনি।
অপরদিকে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ট্রাক প্রতীক নিয়ে প্রথম বারের মতো সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছিলেন রেজাউল করিম রাসেল। ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে বিদ্রোহী প্রার্থী কামাল উদ্দিন সিকদারের কাছে পরাজিত হন। সর্বশেষ ২০২১ সালে কালিয়াকৈর পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিএনপি নেতা মজিবুর রহমানের কাছে পরাজিত হন এ নেতা।নৌকার প্রার্থী ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, আমি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল জনগণ নির্বাচনে আমার বিশ্বাসের মূল্যায়ন করবে,এবং জনগন তা করে দেখিয়েছেন। ৫০ বছর যাবত জনপ্রতিনিধিত্ব করছি। এই সময়ে দলের কার্যক্রলাপে ও জনপ্রতিনিধি হিসেবে সততার সাথেই কাজ করেছি।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী জানান, নির্বাচন শতভাগ ফেয়ার হয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠ করার লক্ষ্যে অতিরিক্ত আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ