আজ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং

মানিকগঞ্জে আইনজীবীর বাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ভূক্তভোগীদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার, (মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জের পৌরসভার বেউথা এলাকায় ঈদের দিন রাতে এক আইনজীবির বাড়ীতে ঢুকে তার পরিবারের সদস্যদের ওপর সন্ত্রাসী হামলাসহ লুটতরাজের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকাবাসী।
বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌরসভার বেউথা এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করা হয়।
স্থানীয মানবাধীকার কর্মী আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে মানব বন্ধনে
বক্তব্য রাখেন সন্ত্রাসী হামলায় আহত
আইনজীবী মোরাদ হোসেন.আহত মনোয়ারা বেগম,কামাল হোসেন ও আব্দুল খালেক।
মানববন্ধের বক্তারা বলেন,গত ঈদুল আযহার দিনগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে একদল সন্ত্রাসী বেউথা এলাকায় আইনজীবী মুরাদ হোসেনের বাড়ীতে ঢুকে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। হামলায় মানিকগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সদস্য মুরাদ হোসেন, তার বৃদ্ধা মা মনোয়ারা বেগম, চার বছরের শিশু, ভাই বড় ভাই মিজান, দুই ভাতিজাসহ পরিবারের বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ সদর সপাতালে ভর্তিকরে। আইনজীবি মুরাদের ভাতিজা মিজানেন ছেলর মোসাব্বির ও আমানুর রহমান দুজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ঢাকা মেডিকেলে পরে পোঙ্গু হাসপাতালে ভর্তিকরা হয়। উন্নত চিকিৎসা শেষে আমানকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
ভূক্তভোগী মিজান জানান, হাসমত একজন মাদকাসক্ত। তার নেতৃত্বে পুর্ব
শত্রুতার জের ধরে কিশোর গ্যাং এসএফ বয়েজ প্রধান আশিক, চিহ্নিত মাদক কারবারি সুজন, সন্ত্রাসী আমজাদ, নান্টু মিয়া,আব্দুর রহমান, আল আমিন, খোরশেদ, রাকিব হোসেন সোহেল, সজিব মিয়া ও জিসান মিয়াপ্রমুখসহ এ হামলা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালায়। তারা ঘরের ভেতর থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটপাট করে নেয় বলে মানব বন্ধনে জানান বক্তারা।
এ ঘটনায় ভুক্তভোগী আইনজীবি মুরাদ হোসেন বাদী হয়ে গত ২০ জুন মানিকগঞ্জ সদর থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন।
হামলার ঘটনায় আহতরা মানববন্ধনে অংশ নিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডডের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানান। আইনজীবি মুরাদের মা সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে ন্যায় বিচারের দাবিতে প্রশসানের পূর্ণ সহযোগিতা কামনা করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
অভিযুক্ত আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ হাসেম আলী মোঠো ফুনে বলেন,এ ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই। কিছু ব্যক্তি আমার সম্মান হানি করার উদ্যেশ্যে আমার বিরোদ্ধে মিথ্যা অপবাদ ছড়াচ্ছে।
মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিল হোসেন বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ