আজ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

মানিকগঞ্জে মাহমুদা হত্যা মামলায় দুই জনের যাবজ্জীবন, দুই জনের মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানিকগঞ্জে চাঞ্চল্যকর মাহমুদা আক্তার (৪৫) হত্যা মামলায় দুই জনের মৃত্যুদণ্ড, মেয়েসহ দুই জনের যাবজ্জীবন ও একজনকে খালাস দিয়েছে আদালত।

আসামিদের উপস্থিতে বুধবার (৮ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় মানিকগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক জয়শ্রী সমদ্দার আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় প্রদান করেন।

জানা যায়,মানিকগঞ্জ পৌরসভার দক্ষিণ সেওতা এলাকার ষ্টেডিয়াম এলাকার গৃহিণী মাহমুদা আক্তারকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে মেয়েসহ মোট ৫ জনকে আসামি করে মানিকগঞ্জ সদর থানায় মামলা করেন নিহত মাহমুদা আক্তারের স্বামী জহিরুল ইসলাম।

স্ত্রী’কে হত্যার অভিযোগে স্বামীর দায়েরকৃত মামলার আসামিরা হলেন, ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ জিন্দাপীড় এলাকার মো. শফিউর রহমান নাঈম (২৫), একই এলাকার আব্দুল বারেকের ছেলে মো. রাকিব হোসেন (২৪), অভিযোগকারীর কন্যা জুলেখা আক্তার জ্যোতি (১৯), নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার পূর্ব গোলমন্ডা এলাকার মো. মাহফুজার রহমান (২০) এবং একই এলকার আব্দুল ভাসানীর ছেলে নুর বক্স।

এদের মধ্যে আসামি রাকিব ও মাহফুজার রহমানকে মৃত্যুদণ্ড, নাঈম ও জ্যোতিকে যাবজ্জীবন এবং নূর হোসেনকে খালাস দিয়েছে আদালত।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০২০ সালের ২২ জানুয়ারী ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে মামলার বাদী হাটার জন্য ও বাজার করার জন্য বাড়ীর বাইরে যায়। সকাল পৌনে ৮ টার দিকে বাজার করে বাসায় ফিরে আসলে মেয়ে জ্যোতি বাড়ির গেট খুলে দেন। এরপর মেয়েকে তার মায়ের সম্পর্কে জিজ্ঞিসাবাদ করলে মা নাস্তা তৈরি করছে বলে জানান মেয়ে জ্যোতি।

এরপর বাড়ির ৫ম তলায় পোষা কবুতরের খাবার দিতে যান বাদী জহিরুল ইসলাম। সেখান থেকে ফিরে রুমের সামনে জ্যোতিকে কান্না করতে দেখে কান্নার কারণ জানতে চান তিনি। এ সময় জ্যোতি এলোমেলো কথাবার্তা বললে ঘুমানোর কক্ষে গিয়ে স্ত্রী মাহমুদাকে লেপ দিয়ে ডাকা অবস্থায় দেখতে পান বাদী। ডাকাডাকিতে স্ত্রী ঘুম থেকে সাড়া না দিলে লেপ ধরে টান দিয়ে স্ত্রী’র জিহ্বা বের করা ও নাকে রক্ত দেখতে পান মামলার বাদী।

এ সময় তার চিৎকারে আশেপাশের রুমের ভাড়াটিয়ারা চলে আসেন এবং মাহমুদাকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে নেওয়া হলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

২০২০ সালের ৩১ মে মানিকগঞ্জ সদর থানার এসআই মো. শামীম আল মামুন সংশ্লিষ্ট আদালতে হত্যা মামলায় জড়িত থাকার দায়ে ৫ জন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় মোট ২৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ২১ জন ব্যক্তি সাক্ষ্য প্রদাণ করেন। পরে মামলার যুক্তিতর্ক শুনানী শেষে মানিকগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক জয়শ্রী সমদ্দার বৃহস্পতিবার চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলাটির দিন ধার্য্য করেন।

মামলার বিষয়ে মানিকগঞ্জ জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর আইনজীবী আবদুস সালাম চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলায় জড়িত আসামিদের মৃত্যুদডণ্ড ও যাবজ্জীবন কারাদন্ডের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

আসামি নুর বক্স এর পক্ষের আইনজীবী আমিনুল হক আকবর ও খন্দকার সুজন হোসেন বলেন, এই আসামি উপরোক্ত মামলার সাথে জড়িত নয়। বিষয়টি সাক্ষ্য, জেরা এবং যুক্তিতর্কের সময় তুলে আনা হয়েছে। সমস্ত বিষয় শেষে বিচারক নুর হোসেনকে খালাস প্রদান করেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ