আজ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে মে, ২০২৪ ইং

ঘিওরে সর্বজনীন পেনশন স্কিম মেলা অনুষ্ঠিত

মো: রাজীব আহসান মান্নু, স্টাফ রিপোর্টার : মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায় সার্বজনীন পেনশন স্কিম মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রতিপাদ্য সকল জনগণকে সর্বজনিন পেনশনের আওতায় আনা ও সকল জনসাধারণকে পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরনের লক্ষ্যে, ঘিওর উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে মেলার আয়োজন করা হয়।

আজ,সোমবার(৬ মে) সকাল ১০ ঘটিকায় ঘিওর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে সর্বজনীন পেনশন সম্পর্কে অবহিতকরণ ও উদ্বুদ্বকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মেলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ্য থেকে ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন বুথ, তথ্য প্রদান ও হেল্প ডেস্ক স্টলের আয়োজন করেন। প্রতিটি স্টল মেলায় উপস্থিত মানুষদের সর্বজনিন পেনশন সম্পর্কে অবহিত করেন ও তথ্য প্রদান করেন। মেলায় ৬০ বয়সের কম সকল বয়স্ক ব্যক্তিদের সর্বজনিন পেনশনের আওতায় আনার জন্য উদ্বুদ্ধ করা হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক রেহান আক্তারের সভাপতিত্বে ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমিনুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক সানজিদা জেসমিন, উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমান,ঘিওর থানার অফিসার ইনচার্জ সুকুমার বিশ্বাস, বড়টিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আবুল হোসাইন সহ ঘিওর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক রেহেনা আক্তার বলেন, পেনশন স্কিম একটি সরকারি মাধ্যম এখানে টাকা মেরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। অল্প কিছু টাকা প্রতি মাসে সঞ্চয় হিসাবে দেওয়ার মাধ্যমে মুনাফা হিসাবে একজন মানুষ ফেরত পাবে। যদি কেউ মারা যায় তাহলে সেক্ষেত্রে যিনি নমিনি থাকবেন তিনি এর সুফল পাবেন। সর্বনিম্ন ৫০০ টাকার বিনিময়ে বাংলাদেশের সকল নাগরিক পেনশন স্কিমের আওতায় আসতে পারেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ বলেন, বাংলাদেশে বৃদ্ধাশ্রম না রাখাই উচিৎ না এবং বৃদ্ধ বয়সে কোনো মানুষ যেনো সন্তানদের বোঝা না হয়ে যায় এর জন্য পেনশন স্কিমের গুরুত্ব রয়েছে।

আলোচনা সভায় সকল অতিথি পেনশন স্কিম বাস্তবায়নে লক্ষ্যে এর গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং মেলায় উপস্থিত বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত স্টলগুলো উদ্ধোধন করেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানের শেষে মনোরঞ্জনের জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ